গত সোমবার ভারতের সংবিধান থেকে জম্মু-কাশ্মীরের বিশেষ মর্যাদা আইনটি বাতিল করার পর থেকেই উত্তেজনা শুরু হয় কাশ্মীরে। ভারতের এমন সিদ্ধান্তে ক্ষোভ প্রকাশ করে পাকিস্তানের সেনাপ্রধান কামার জাভেদ বাজওয়াও বলেন- কাশ্মীরিদের অধিকার আদায়ের জন্য সব রকম সহায়তা করার জন্য প্রস্তুত পাকিস্তানি সেনাবাহিনী।

অপর দিকে জম্মু-কাশ্মীর বিষয়ে পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান বলে- ভারত যে সিদ্ধান্ত নিয়েছে তা সম্পূর্ণ আন্তর্জাতিক আইনের বিরুদ্ধে। আমরা জাতিসংঘের নিরাপত্তা পরিষদে বিষয়টি তুলে ধরবো। এটি আমরা সারা বিশ্বকে জানাবো।

এই সময় তিনি বলেন
কাশ্মীরের বিশেষ মর্যাদা বাতিল করে, তাদেরকে জাতিগত নির্মূল করতে পারে ভারতীয় সরকার। তিনি আরো বলেন কাশ্মীরীদের দাসে পরিণত করার জন্যই সংবিধান থেকে কাশ্মীরের বিশেষ মর্যাদা আইন বাতিল করেছে ভারতীয় সরকার।

আবার ভারতীয় সরকারের সিদ্ধান্তের বিরোধিতা করে পাকিস্তান মুসলিম লীগের নেতা শাহবাজ শরিফ বলেছেন:- আমরা যুদ্ধ চাই না। তাই বলে ভারতীয় সরকার যে সিদ্ধান্ত নিয়েছে, আমরা তা মেনে নিবো না। আমরা সব সময় কাশ্মীরের পাশে আছি।

জম্মু-কাশ্মীর অঞ্চলটি গত রবিবার সন্ধ্যা থেকে অবরুদ্ধ অবস্থায় রয়েছে । বন্ধ করে দিয়েছে সকল যোগাযোগ ব্যবস্থা এবং জারি করা হয়েছে কারফিউ।