নরসিংদীর চরাঞ্চলের টেঁটাযুদ্ধের সর্দার জাকির ও তার দুই সহযোগী কে গ্রেফতার করেছে জেলা গোয়েন্দা (ডিবি) পুলিশ। এসময় জাকির হোসেন এর বাড়ি থেকে ১১০ টি ককটেল, ২০ টি পেট্রল ও ১ টি একনলা বন্দুক উদ্ধার করা হয়।

সোমবার (৯ সেপ্টেম্বর) রাতে নরসিংদী সদর উপজেলার খোদাদিলা গ্রাম ও শহরের লঞ্চঘাট এলাকা থেকে তাদের গ্রেফতার করা হয়। গ্রেফতারকৃত জাকির হোসেন সদর উপজেলার আলোকবালি ইউনিয়নের খোদাদিলা গ্রামের রমন মিয়ার ছেলে। অন্য দুইজন হলো একই গ্রামের মুন্নাফ মিয়ার ছেলে শাকিল মিয়া (২৬) ও হানিফা মিয়ার ছেলে আতিক (২৬) ।

গোয়েন্দা পুলিশ সূত্রে জানা যায়, নরসিংদী চরাঞ্চলের টেটা যুদ্ধে নিরসনে পুলিশ সুপারের নির্দেশে বিশেষ অভিযান চালাচ্ছে পুলিশ। এরই ধারবাহিকতায় গোপন সংবাদের ভিত্তিতে সোমবার রাতে গোয়েন্দা পুলিশের দুইটি বিশেষ দল খোদাদিলা গ্রামে অভিযান চালায়।

সে অভিযানে অস্ত্র ও বিস্ফোরক মামলার আসামি জাকির হোসেন কে গ্রেফতার করা হয়। পরে তার দেয়া তথ্য মতে নির্মাণাধীন একটি ঘরের ভেতর লুকানো একটি ব্যাগ থেকে একটি একনলা বন্দুক ও ঘরের মেঝের মাটি খুঁড়ে ১১০টি ককটেল ও ২০টি পেট্রোল বোমা উদ্ধার করা হয়।

নরসিংদী জেলা গোয়েন্দা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা গোলাম মোস্তফা বলেন, গ্রেপ্তারকৃতরা পুলিশের দায়ের করা বিস্ফোরক মামলার এজাহারনামীয় আসামি। এরা চরাঞ্চলে টেটা যুদ্ধের নেতৃত্ব দেয়, অস্ত্র ও বোমা সরবরাহ করে থাকে।

অস্ত্র ও বোমা উদ্ধারের ঘটনায় গ্রেফতারকৃতদের বিরুদ্ধে নরসিংদী সদর থানায় মামলা দায়ের করা হয়েছে। তাদেরকে মঙ্গলবার (১০ সেপ্টেম্বর) বিকেলে আদালতের মাধ্যমে জেল হাজতে প্রেরণ করা হয়েছে।